ব্রেকিং নিউজ :
Home » স্বাস্থ্য ও পরামর্শ » রমজানে স্বাস্থ্যগত প্রস্তুতি

রমজানে স্বাস্থ্যগত প্রস্তুতি

প্রাইম নিউজ ডেস্ক : রোজা রাখা-না-রাখা নিয়ে অনেকেই নানা রকম দ্বিধায় পড়েন। বিশেষ করে যাদের বেশ কিছু স্বাস্থ্য সমস্যা রয়েছে, যেগুলো থাকলে অনেকেই রোজা রাখতে চান না। কিন্তু চিকিৎসাবিজ্ঞানের মতে বেশির ভাগ রোগব্যাধি নিয়েই রোজা রাখা যায়। তবে সে ক্ষেত্রে চলতি ওষুধগুলোর ব্যবহারবিধি কিংবা ধরন পরিবর্তন করতে হতে পারে। এবার তেমন কিছু রোগের ক্ষেত্রে কিভাবে রোজা রাখা যাবে, তা তুলে ধরা হলো।
পেপটিক আলসার বা অ্যাসিডিটি : খালি পেটে থাকলে অ্যাসিডিটির সমস্যা বাড়বে অনেকের ভাবনা এ রকম। তাই রমজান মাস শুরু হলে এ ধরনের রোগীরা দুশ্চিন্তায় পড়ে যান রোজা রাখবেন কি না। কিন্তু রোজা রাখলেই যে অ্যাসিডিটি বাড়বে, এমন কোনো সম্ভাবনা নেই। পেপটিক আলসারের রোগীদের প্রধান কাজ হলো নিয়মিত খাবার খাওয়া, নিয়মিত ঘুমানো এবং নিয়মিত ওষুধ গ্রহণ। রোজায় মানুষের জীবন একটা নিয়মে চলে আসে বিধায় এ সময় অ্যাসিডিটির সমস্যা অনেকাংশে কমে যায়। কেউ যদি ভয় পেয়ে যান এই ভেবে যে, রোজায় তার অ্যাসিডিটির সমস্যা বেড়ে যেতে পারে, তাহলে তিনি সেহরি ও ইফতারের সময় রেনিটিডিন বা ওমি প্রাজল গ্রুপের ওষুধ একটি করে খেয়ে নিতে পারেন। পাশাপাশি অবশ্যই ভাজাপোড়া জাতীয় খাবার পরিহার করতে হবে।
উচ্চ রক্তচাপ : উচ্চ রক্তচাপের রোগীদের বেলায়ও একই ব্যবস্থা অবলম্বন করা যায়। তবে কথা হচ্ছে, এ ক্ষেত্রে ওষুধ পরিবর্তন করার সময় অবশ্যই নিয়মিত চিকিৎসকের তত্ত্বাবধানে থাকতে হবে। কারণ, ওষুধ পরিবর্তনের ফলে রক্তচাপ খুব সহজে নিয়ন্ত্রণে না-ও আসতে পারে। তাই উচ্চ রক্তচাপের রোগী যারা নিয়মিত বিভিন্ন ধরনের ওষুধ খেয়ে রক্তচাপকে নিয়ন্ত্রণে রেখেছেন তারা যদি রোজা রাখতে চান তাহলে নতুন শিডিউলে ওষুধ গ্রহণ করতে হবে। একবারে নিয়মত, কোনো অনিয়ম করা চলবে না। ইন্টারনেট।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.