ব্রেকিং নিউজ :
Home » বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি » ব্লু হোয়েল গেম নিয়ে বিটিআরসির নামে ভুয়া বার্তা

ব্লু হোয়েল গেম নিয়ে বিটিআরসির নামে ভুয়া বার্তা

প্রাইম নিউজ ডেস্ক :  ব্লু হোয়েল গেম নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নানা গুজব ছড়ানো হচ্ছে। এজন্য ব্যবহার করা হচ্ছে নিয়ন্ত্রণকারী সংস্থা বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি) এর নাম। ওই বার্তায় বলা হচ্ছে-১৩ অক্টোবর শুক্রবার রাত ৯টা থেকে ১০টা পর্যন্ত এক ঘণ্টা বাংলাদেশের সব অ? এ্যান্ড্রয়েড ফোনে ব্লু হোয়েল গেম ঢুকিয়ে দেয়া হবে। যা প্রবেশের ফলে আপনার ফোনের সব ? ব্যক্তিগত তথ্য, ফেসবুক, টুইটার, হোয়াটসঅএ্যাপ, আইএমওসহ সবকিছু ধ্বংস হয়ে যাবে। তাই শুক্রবার রাত ৯ থেকে ১০টা পর্যন্ত ফোন বন্ধ রাখুন।

দেশের সেবায় এটি বেশি বেশি ফরোয়ার্ড করুন। জনসচেতনতায় বিটিআরসি। বৃহস্পতিবার থেকে এ ধরনের গুজব ছড়ানো হচ্ছে বলে জানান সংশ্লিষ্টরা। এদিকে বিটিআরসির পক্ষ থেকে এ ধরনের বার্তাকে সম্পূর্ণ ভুয়া বলে আখ্যায়িত করা হয়েছে।

বিটিআরসির সচিব ও মুখপাত্র সরওয়ার আলম বলেন, বিটিআরসির নাম দিয়ে যে বার্তাটি ছড়ানো হচ্ছে তা সম্পূর্ণ ভুয়া ও মিথ্যা। জনমনে বিভ্রান্তি তৈরির জন্য কোনো অসাধু মহল বিটিআরসির নামে এটি ছড়াচ্ছে। বিটিআরসির পক্ষ থেকে এ ধরনের বার্তা প্রচারকে শাস্তিমূলক অপরাধ বলে উল্লেখ করা হয়েছে। সংস্থাটির পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, এ ধরনের আহ্বান জানিয়ে বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়া যেমন ফেসবুক মেসেঞ্জার, ভাইবার, হোয়াটসঅ্যাপ, টুইটার ইত্যাদিতে ভাইরাল আকারে প্রচার করা হচ্ছে। যেখানে অসৎ উদ্দেশ্যে ‘জনসচেতনতায় বিটিআরসি’ এই নাম ব্যবহার করা হচ্ছে।

সবার অবগতির জন্য জানাচ্ছি যে, বিটিআরসি থেকে এ ধরনের কোনো বার্তা বা খবর প্রচার বা প্রকাশ করা হয়নি এবং এই পুরো বার্তাটি সম্পূর্ণ মিথ্যা ও বানোয়াট। বিটিআরসির নাম ব্যবহার করে এরকম মিথ্যা ও বিভ্রান্তিমূলক বার্তা প্রচার করা শাস্তিযোগ্য অপরাধ। এ ধরনের সাইবার অপরাধ থেকে বিরত থাকার জন্য সংশ্লিষ্ট সবাইকে সতর্ক করা যাচ্ছে।

দেশের সব মোবাইল ও ইন্টারনেট ব্যবহারকারীগণকে এ বিষয়ে বিভ্রান্ত না হওয়ার জন্য অনুরোধ করা হচ্ছে। সংশ্লিষ্টরা জানান, গত সপ্তাহ থেকে ব্লু হোয়েল গেমটি নিয়ে বাংলাদেশে আলোচনা শুরু হয়। সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে এ গেম নিয়ে নানা মন্তব্য প্রকাশিত হয়। অনেকেই গেমটি নিয়ে কৌতূহলী হয়ে ওঠেন। কৌতূহলী মানুষকে আকৃষ্ট করতে অনলাইনে নানা ভুয়া অ্যাপ ও কনটেন্ট ছড়াচ্ছে।

 

সুত্র: মানবজমিন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.